• ঢাকা, বাংলাদেশ বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০৪:৩৬ পূর্বাহ্ন
  • [কনভাটার]

রাণীনগরে অবৈধভাবে চলছে ব্যক্তিগত নলকুপ: কৃষক ও বিএমডিএর গভীর নলকুপ!

বিকাশ চন্দ্র প্রাং, নওগাঁ / ১২ বার পঠিত
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ১০ জুন, ২০২১
রাণীনগরে ব্যক্তিগত নলকুপ

নওগাঁর রাণীনগরে বিধিনিষেধ ও নিয়মনীতি না মেনেই অবৈধভাবে চলছে ব্যক্তিগত গভীর নলকুপ। এতে ক্ষতিগ্রস্থ্য হচ্ছে কৃষকের জমির চাষাবাদ ও অপর বিএমডিএর গভীর নলকুপ।

ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার একডালা ইউনিয়নের নারায়নপাড়া গ্রামে। প্রতিপক্ষ প্রভাবশালী হওয়াই সরকারের কোন বিধিনিষেধ ও নিয়মনীতি না মেনেই অবৈধভাবে চালিয়ে আসছে ব্যক্তিগত এই গভীর নলকুপটি।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, নারায়নপাড়া গ্রামের কৃষকদের মাঝে সুলভ মূল্যে সেচের পানি দেওয়ার লক্ষ্যে রামজীবনপুর মৌজায় ২০০৯ সালে বরেন্দ্র বহুমুখী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের আওতায় একটি গভীর নলকুপ স্থাপন করা হয়। সেই সময় থেকে নলকুপের অপারেটরের দায়িত্ব পাল করে আসছে নারায়নপাড়া গ্রামের মৃত লোকমান আলী মাঝির ছেলে আনিছুর আলী মাঝি। এর পরবর্তি সময়ে ২০১৩ সালে তৎকালীন উপজেলা বরেন্দ্র উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও উপজেলা সেচ কমিটির যোগসাজসে নিয়ম বর্হিভুতভাবে নারায়নপাড়া ও রামজীবনপুর মৌজায় একই গ্রামের মৃত আক্কাছ আলীর ছেলে হারুন-অর-রশিদকে আরেকটি ব্যক্তিগত গভীর নলকুপের লাইসেন্স ও ছাড়পত্র প্রদান করা হয়।

২০১৮ সালের পূর্বে নিয়ম অনুসারে এক গভীর নলকুপ হতে অন্য একটি নলকুপের দূরত্ব সর্বনিম্ম ১৮০০ ফুট হতে হবে এবং ২০১৮ সালের পর এই দূরত্ব নির্ধারণ করা হয় ২৫৪০ ফুট। কিন্তু হারুন-অর-রশিদের ব্যক্তিগত নলকুপের দূরত্ব প্রায় ১৪০০ ফুট। এই ক্ষেত্রে নির্ধারিত দূরত্বও মানা হয়নি। এই বিষয়ে পরবর্তিতে আনিছুর রহমান গত ২০১৯ সালে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, বিএমডিএর নির্বাহী প্রকৌশলী ও অন্যান্য দপ্তর বরাবর লিখিত অভিযোগ প্রদান করেন।

অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত সাপেক্ষে ২০২০ সালের জানুয়ারী মাসের ২৮ তারিখে বিএমডিএর নওগাঁর রিজিয়ন-১এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. সমশের আলী স্বাক্ষরিত এক আদেশে বলা হয় হারুন-অর-রশিদের স্থাপন করা ব্যক্তিগত গভীর নলকুপে বিদ্যুৎ সংযোগের জন্য অনিয়মতান্ত্রিকভাবে লাইসেন্স প্রদান করা হয়েছে।

ওই নলকুপে সংযোগ প্রদান করা হলে বিএমডিএর স্থাপনকৃত গভীর নলকুপটি ক্ষতিগ্রস্থ হবে। তাই হারুন-অর-রশিদের ১১৪ নং লাইসেন্স বাতিলের পরবর্তি ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য উপজেলা বিএমডিএকে নির্দেশনা প্রদান করা হয়। এর পরবর্তিতে ২০২০ সালের জুন মাসের ৮ তারিখে উপজেলা সেচ কমিটির এক সভায় বিএমডিএর স্থাপন করা গভীর নলকুপের এরিয়ায় প্রবেশ না করা, নির্ধারিত রেটে কৃষকদের কাছে পানি সরবরাহ করাসহ ৫টি শর্ত প্রদান করা হয় হারুন-অর-রশিদকে। কিন্তু হারুন কোন শর্তই আজ পর্যন্ত মেনে চলছে না।

হারুন শর্ত ভঙ্গ করে অবৈধ ভাবে বিএমডিএর স্থাপন করা গভীর নলকুপের এরিয়ায় প্রবেশ করে ক্ষমতার জোরে পানি সেচ দিয়ে আসছে। তার এলাকার কৃষকদের কাছ থেকে পানি সেচের নির্ধারিত মূল্য থেকে বেশি অর্থ আদায় করে আসছে। আর চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে বিএমডিএর গভীর নলকুপটি। এই বিষয়টি বছরের পর বছর সমাধান না হওয়ায় পানির সেচ নিয়ে চরম বিড়ম্বনার শিকার হয়ে আসছেন এলাকার শত শত কৃষকরা। স্থানীয় বাসিন্দারা হারুন-অর-রশিদের অবৈধ নলকুপের দ্রুত অপসারণ দাবী করেছেন।

বিএমডিএ অনুমোদিত নলকুপের অপারেটর আনিছুর রহমান জানান, হারুন প্রভাবশালী ব্যক্তি হওয়াই সে সরকারের নিয়মনীতিকে তোয়াক্কা না করে এমন কি আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে তার নলকুপ পরিচালনা করে আসছে। যার কারণে স্থানীয় কৃষকসহ বিএমডিএ অনুমোদিত নলকুপটি চরম ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। দ্রুত এই সমস্যাটির সমাধান করা না হলে স্থানীয়দের মাঝে এক সংঘর্ষের আশঙ্কা রয়েছে।

এ বিষয়ে হারুন-অর-রশিদ জানান, সেই সময় আমিসহ আরো কয়েকজন শেয়ারের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনমুতি নিয়েই নলকুপ স্থাপন করেছি। তবে বিএমডিএর গভীর নলকুপের এরিয়ার মধ্যে আমার এক অংশীদারের কিছু জমি থাকায় সেই জমিতে আমি আমার নলকুপ থেকে পানি সেচ দিয়ে আসছি। আমি কোন শর্তই অমান্য করিনি।

বিএমডিএ’র রাণীনগর জোনের সদ্য বিদায়ী সহকারী প্রকৌশলী সৈয়দ মো: মিজানুর রহমান জানান, তৎকালীন সময়ের সেচ কমিটি ও বিএমডিএ কর্মকর্তা কিভাবে হারুনকে এই গভীর নলকুপ স্থাপনের অনুমতি দিয়েছিলো তা আমার জানার বাহিরে। কিন্তু গত বছর হারুনকে ৩শত টাকার ষ্ট্যাম্পে ৫টি অবশ্যই পালনীয় শর্তের মাধ্যমে নলকুপ পরিচালনার অনুমতি দেওয়া হয়েছিলো। এখন যদি হারুন সেই শর্তগুলো ভঙ্গ করে তাহলে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা অবশ্যই গ্রহণ করা যেতে পারে।

বিএমডিএ’র রাণীনগর জোনের বর্তমান সহকারী প্রকৌশলী ফারুক হোসেন জানান, এই বিষয়ে সম্প্রতি আমি অভিযোগ পেয়েছি। সরেজমিনে তদন্ত সাপেক্ষে অভিযুক্ত ব্যক্তি এবং গভীর নলকুপ পরিচালনার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


এই ধরনের আরও সংবাদ

পুরাতন সব সংবাদ

SatSunMonTueWedThuFri
   1234
12131415161718
19202122232425
2627282930  
       
     12
10111213141516
       
  12345
6789101112
13141516171819
2728293031  
       
  12345
6789101112
13141516171819
2728     
       
      1
16171819202122
23242526272829
3031     
   1234
       
  12345
27282930   
       
29      
       
1234567
2930     
       

বিজ্ঞাপন

error: Content is protected !!