• ঢাকা, বাংলাদেশ বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০৪:১২ পূর্বাহ্ন
  • [কনভাটার]

এলডিসি পরবর্তী সম্ভাব্য চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় উচ্চ পর্যায়ের কমিটি কাজ শুরু করেছে

বিডি নিউজ বুক ডেস্ক: / ১৭ বার পঠিত
আপডেট : বৃহস্পতিবার, ৬ মে, ২০২১

এলডিসি পরবর্তী পরিস্থিতির সম্ভাব্য চ্যালেঞ্জ কাটিয়ে উঠতে উচ্চ পর্যায়ের কমিটি তার কৌশল এবং পরিকল্পনা প্রণয়নের কাজ শুরু করেছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এলডিসি থেকে বাংলাদেশের উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা লাভের সম্ভাব্য চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার প্রস্তুতি, পরিকল্পনা, বাস্তবায়ন ও পর্যবেক্ষণে গত ২৬ এপ্রিল মুখ্য সচিব ড: আহমদ কায়কাউসের নেতৃত্বে ২২ সদস্যের উচ্চপর্যায়ের একটি কমিটি গঠন করেন।

কমিটির প্রথম সভা বুধবার (৫মে) অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড: আহমদ কায়কাউস সভায় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে যোগ দেন এবং সভাপতিত্ব করেন।

বৈঠকে দেশের অর্থনীতি, আর্থ-সামাজিক প্রেক্ষাপট এবং অন্যান্য ক্ষেত্রগুলিতে বিশেষ করে আরএমজি এবং ফার্মাসিউটিক্যালস বিষয়ে এসময়ে এসব রফতানিমুখী খাতে বিভিন্ন সম্ভাব্য নেতিবাচক প্রভাব নিয়ে আলোচনা হয়। অর্থনৈতিক বিভাগের সচিব (ইআরডি) সচিব ফাতিমা ইয়াসমীন বৈঠকে একটি পাওয়ার পয়েন্ট উপস্থাপন করেন। কমিটি এক মাসের মধ্যে বিভিন্ন খাতে সম্ভাব্য চ্যালেঞ্জগুলি সমাধান করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ লক্ষ্যে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মো. জাফর উদ্দিনের নেতৃত্বে ছয় সদস্যের একটি সাব কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বৈঠক শেষে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের (পিএমও) সচিব মো. তোফাজ্জল হোসেন মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, ‘উপ-কমিটিকে খাত ভিত্তিক চ্যালেঞ্জগুলি চিহ্নিত করতে এবং এক মাসের মধ্যে একটি কার্য পরিকল্পনা প্রস্তুত করতে বলা হয়েছে।

এসময়ে বাংলাদেশ বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সহায়তা হারাবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, স্নাতক পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের জন্য দ্বিপক্ষীয় বা বহুপাক্ষিক উৎস থেকে শুল্কমুক্ত ও কোটা ফ্রি অ্যাক্সেসের ব্যাবস্থা করতে হবে। কেননা দেশটির অর্থঋণ সুবিধা ও সংকুচিত হবে। এছাড়াও, আন্তর্জাতিক মেধাস্বত্ত আইনের বিষয়টি ২০৩৩ সালের পরে যে কোনও সময় সঙ্কুচিত হবে বলে তিনি জানান।

সভায়, কমিটি এলডিসি পরবর্তী চ্যালেঞ্জগুলি সম্পর্কে বিভিন্ন অভিমত এবং মতামত পেতে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বিভিন্ন সেক্টরের বিশেষজ্ঞ এবং একাডেমিস্টদের সাথে একটি বৃহৎ আকারের সেমিনার আয়োজনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কমিটি প্রতিমাসে নিয়মিত একবার সভায় বসবে।

কমিটির সদস্যদের মধ্যে- প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সমন্বয়ক (এসডিজি বিষয়ক) (জুয়েনা আজিজ), আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব, অর্থ বিভাগের সিনিয়র সচিব, এনবিআর চেয়ারম্যান, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য (জিইডি), বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব, পিএমও সচিব, ইআরডি সচিব, পররাষ্ট্র সচিব, শিল্পসচিব, কৃষি সচিব, পরিবেশ সচিব, বিআইডির নির্বাহী চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ বাণিজ্য ও শুল্ক কমিশনের চেয়ারম্যান, মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক, পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য শরিফা খান, এফবিসিসিআই সভাপতি, বিজিএমইএ সভাপতি, ডিসিসিআই সভাপতি, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অফ ফার্মাসিউটিক্যাল ইন্ডাস্ট্রিজের (বিএডিআই) সভাপতি, মহাপরিচালক (এক্সিকিউটিভ সেল এবং পিইপিজেড) পিএমওর (কমিটির সদস্য সচিব) সভায় যোগ দিয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগে বাংলাদেশের এলডিসি পরবর্তী যাত্রা শুরু হয়েছে। তিনি ২০১৩ সালের ১৩ মে, জাতিসংঘের চতুর্থ এলডিসি সম্পর্কিত শীর্ষ সম্মেলনে অংশ নিয়েছিলেন, যেখানে ‘ইস্তাম্বুল অব অ্যাকশন পরিকল্পনা’ গৃহীত হয়েছিল।
তারপর থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের এলডিসি গ্র্যাজুয়েশনের জন্য অ্যাকশন পরিকল্পনা গ্রহণ করেন এবং তিনি এ লক্ষ্যে নিরন্তর নির্দেশনা দিয়ে চলেছেন।


এই ধরনের আরও সংবাদ

পুরাতন সব সংবাদ

SatSunMonTueWedThuFri
   1234
12131415161718
19202122232425
2627282930  
       
     12
10111213141516
       
  12345
6789101112
13141516171819
2728293031  
       
  12345
6789101112
13141516171819
2728     
       
      1
16171819202122
23242526272829
3031     
   1234
       
  12345
27282930   
       
29      
       
1234567
2930     
       

বিজ্ঞাপন

error: Content is protected !!