সর্বশেষ:
‘ঘরই কাল হলো লাকির’ সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে বগুড়ায় সাংবাদিকদের মানববন্ধন বীর মুক্তিযোদ্ধা কয়েস উদ্দীনকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন চলে গেলেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ পৌর নির্বাচনে বগুড়ায় সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকে নির্বাচিত করতে সুজনের পদযাত্রা ও মানববন্ধন সাপাহারে অবৈধভাবে লাইসেন্স ছাড়াই চলছে ২২ টি স’মিল মান্দায় বঙ্গবন্ধু’র ম্যুরাল নির্মান কাজের উদ্বোধন সাপাহারে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন অমর একুশে স্মরণে টাঙ্গাইল মুক্তিযোদ্ধা সন্তান সংসদের শ্রদ্ধাঞ্জলি পাইস্কা উচ্চ বিদ্যালয় ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষার দাবীতে আলোচনা সভা
টাঙ্গাইলে মায়ের পরকীয়ায় মেয়ের সংবাদ সম্মেলন

টাঙ্গাইলে মায়ের পরকীয়ায় মেয়ের সংবাদ সম্মেলন

:: টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ::

মায়ের অনৈতিক কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদে টাঙ্গাইলে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার মেয়ে। এ সময় লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন মেয়ে মাইমুনা আক্তার তানহা।

বৃহস্পতিবার (১২ ডিসেম্বর) টাঙ্গাইল প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। তানহা ৭ম শ্রেণির শিক্ষার্থী। তার বাড়ি জেলার বাসাইল উপজেলার করাতিপাড়ায়।

মাইমুনার আক্তার তানহা সংবাদ সম্মেলনে বলে, আমার মা শাহনাজ আক্তার (৩৩) বাসাইল উপজেলার বর্ণি কিশোরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা হিসেবে কর্মরত আছেন। আমার বাবা প্রবাসে থাকাকালীন (২০০৭-২০১৮ সাল পর্যন্ত) আমার মায়ের পূবালী ব্যাংকের অ্যাকাউন্টে ৫৮ লাখ ৯৩ হাজার ৭৭২ টাকা পাঠায়। মাকে বাবা বিভিন্ন সময়ে ১৬ ভরি স্বর্ণালংকার ও সখিপুর মৌজায় জমি কিনে দিয়েছেন। সঙ্গে আমার নানার বাড়িতে দুটি টিনের ঘরও বানিয়ে দেন।

এ দিকে আমার বাবা বিদেশে থাকা অবস্থায় টাঙ্গাইল সদর উপজেলার চরদিঘুলিয়া গ্রামের হাসান মাস্টারের ছেলে মনিরুজ্জামান মামুনের সঙ্গে আমার মায়ের পরকীয়া সম্পর্ক হয়। পরে সেই বিষয়টি আমি জানার পর মাকে ওই অবৈধ সম্পর্ক থেকে বিরত থাকতে বলি। এ কারণে তিনি আমাকে একাধিকবার মারধর করেন। আমি একজন নাবালিকা মেয়ে।
গত ৮ নভেম্বর আমার মা নগদ ২০ লাখ টাকা ও ১৬ ভরি স্বর্ণসহ আমার আড়াই বছরের ছোট ভাই আদিল আহানাফকে নিয়ে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায়। আমি ও আমার বাবা বিভিন্ন এলাকা এবং আত্মীয়ের মাধ্যমে খোঁজ নিয়ে জানতে পারি মা তার পরকীয়া প্রেমিক মনিরুজ্জামান মামুনের সঙ্গে পালিয়ে গেছে।

টাঙ্গাইল-৮ (বাসাইল-সখীপুর) আসনের এমপি জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের, জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, বাসাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি, ৩০ নম্বর বর্ণি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বরাবর আবেদন করেও কোনও সুরাহা হয়নি। পরবর্তীতে আমার বাবা বাদী হয়ে টাঙ্গাইল জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট বাসাইল থানা আমলি আদালতে মামলা দায়ের করেন।

বিষয়টি নিয়ে প্রতিবাদ করার পর থেকে মনিরুজ্জামান মামুন বিভিন্ন সময় বিভিন্ন মাধ্যমে আমাদের হুমকি, ধমকি দিয়ে আসছে। আমি মামুনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। আমার মাকে আমি ফেরত চাই। মাকে নিয়ে পূর্বের মতো সংসার করতে পারি সেই প্রত্যাশা কামনা করছি। এ সময় মাইমুনা আক্তার তানহার বাবা সুলতান মাহমুদ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© এই পোর্টালের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্ব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design BY NewsTheme
error: Content is protected !!