সর্বশেষ:
বগুড়ায় বাসের চাপায় সিএনজির ৪ যাত্রী নিহত ধনবাড়ীতে পিকআপ ভ্যান ও ট্রলির মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত -১ : আহত ৫ ‘ঘরই কাল হলো লাকির’ সাংবাদিক মুজাক্কির হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে বগুড়ায় সাংবাদিকদের মানববন্ধন বীর মুক্তিযোদ্ধা কয়েস উদ্দীনকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন চলে গেলেন বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ খোন্দকার ইব্রাহিম খালেদ পৌর নির্বাচনে বগুড়ায় সৎ ও যোগ্য প্রার্থীকে নির্বাচিত করতে সুজনের পদযাত্রা ও মানববন্ধন সাপাহারে অবৈধভাবে লাইসেন্স ছাড়াই চলছে ২২ টি স’মিল মান্দায় বঙ্গবন্ধু’র ম্যুরাল নির্মান কাজের উদ্বোধন সাপাহারে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন
টাঙ্গাইলের সেই বয়াতি তিন দিনের রিমান্ডে, ধর্মের ভুল ব্যাখা দিয়ে গান গাওয়ায়

টাঙ্গাইলের সেই বয়াতি তিন দিনের রিমান্ডে, ধর্মের ভুল ব্যাখা দিয়ে গান গাওয়ায়

টাঙ্গাইল প্রতিনিধি :

বয়াতি গানের অনুষ্ঠানে ধর্মের ভুল ব্যাখা দিয়ে গান গেয়ে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাতের মামলায় শরিয়ত বয়াতিকে তিন দিনের রিমান্ডে নিয়েছে পুলিশ। গতকাল শনিবার তাকে টাঙ্গাইলের সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক আসলাম মিয়ার আদালত এ আদেশ দেন।

পুলিশ দশ দিনের রিমান্ড চাইলেও আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে। তিনি টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার আগধল্যা গ্রামের পবন মিয়ার ছেলে।

শনিবার ভোরে ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার বাশিল এলাকা থেকে শরিয়ত বয়াতিকে গ্রেপ্তার করা হয়।
মির্জাপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মিজানুর রহমান বলেন, শরিয়ত বয়াতিকে ১০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে টাঙ্গাইল পাঠানো হলে আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

৯ জানুয়ারি শরিয়ত বয়াতির বিরুদ্ধে ধর্মীয় নিরাপত্তা আইন ২০১৮ ও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে উপজেলার আগধল্যা গ্রামের মাওলানা ফরিদুল ইসলাম বাদী হয়ে মির্জাপুর থানায় করেন।

প্রসঙ্গত, গত বছরের ২৪ ডিসেম্বর রাতে ঢাকার ধামরাই উপজেলার রৌহাট্টেক এলাকায় অবস্থিত পীর হজরত হেলাল শাহর দশম বার্ষিক পালা গানের অনুষ্ঠানে শরিয়ত বয়াতি ইসলাম ধর্ম ও নবী-রাসুল নিয়ে শরিয়তবিরোধী ভুল ব্যাখা দিয়ে গান করেন।

এ সময় তিনি দাবি করেন যে, ‘কোরআনের কোথাও গান-বাজনা হারামের কথা নেই।’ এ বিষয়ে প্রমাণ দিতে পারলে ৫০ লাখ টাকা পুরস্কার দেয়ারও ঘোষণা দেন শরিয়ত বয়াতি। গানে গানে তিনি বলেন, ‘রাসুল (স:) গান না শুনে ঘুমাতেন না। নবীজি আবু মুসা আশরায়ী (রা:) কে ২৩ রকমের বাদ্যযন্ত্র হাদিয়া দেন।

বাদ্যযন্ত্রগুলো দাউদ নবির ছিল।’
শরিয়ত বয়াতি বলেন, ‘মসজিদের হুজুররা ১৩০০ টাকা বেতনের চাকরি করে আজান দেয়। সেই টাকা দিয়ে সংসার চালায়। বানরের মত চুক্কা টুপি মাথায় দিয়া ঘুরে, আর শালারা বলে হারাম হারাম। যারা নামাজ পড়ে সেজদা দিয়া কপালে কালো দাগ করে, তাদের কপাল থেকে ১১৩টি কিড়া বের হয়।

নামাজ পড়ে যে নূর হয়, সেইগুলি হুজুরদের পায়ুপথে বের হয়। নবিই আল্লাহ, আল্লাহই নবি, যেই মুরশেদ- সেই রসুল এই কথাতে নেই কোন ভুল বলেন- লালন ফকির।’
এভাবেই পালা গানের মধ্যে শরিয়ত বয়াতি আল্লাহ্, রাসুল, ইসলাম, কোরআন, হাদিসের বিরুদ্ধে এমন আরো অনেক ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে গান পরিবেশন করেন।

সেই গানটি ইউটিউব ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে দ্রুত ভাইরাল হয়। পরে এ বিষয়ে মির্জাপুরের ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা তার বিচার দাবিতে আন্দোলন করেন।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© এই পোর্টালের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্ব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design BY NewsTheme
error: Content is protected !!