টাঙ্গাইলে মসজিদে চুরি করতে গিয়ে জনতার হাতে আটক হলো চোর !

টাঙ্গাইলে মসজিদে চুরি করতে গিয়ে জনতার হাতে আটক হলো চোর !

:: টাঙ্গাইল প্রতিনিধি ::

টাঙ্গাইলের ঘাটাইলে মসজিদে চুরি করতে গিয়ে স্থানীয় জনতার হাতে শুক্রবার (৬ মার্চ) রাতে বারেক মিয়া নামে একচোর আটক হয়েছে। ঘাটাইলে উপজেলার খিলগাতি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সঙ্গবদ্ধ চোরের দলের অন্যান্য সদস্যরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও জনতার হাতে আটক হন বারেক মিয়া। সে মধুপুর উপজেলার মদনগোপাল এলাকার বাসিন্দা।

মসজিদের সেক্রেটারি মজনু মিয়া জানায় যায়, শুক্রবার রাতে ঘাটাইলের উত্তর খিলগাতি ঠাকুর পাড়া জামে মসজিদের মাইক, ব্যাটারিসহ যাবতীয় জিনিস চুরি করার জন্য তালা ভেঙ্গে ভেতরে ঢুকে চোরের একদল। মসজিদটি বাড়ি সংলগ্ন হওয়ায় ঘর থেকে শব্দ শুনতে পাই। তারপর লক্ষ্য করি দুয়েকজন লোক মসজিদের পাশে কানাকানি করছে। এ ঘটনাটি খুব সুক্ষ্মভাবে পর্যবেক্ষণ করতে থাকি। মসজিদের ছাদের উপরেও মানুষ। কোন শব্দ না করে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে আশেপাশের অন্য ভাইদের জাগ্রত করা হয়।

এ সময় স্থানীয়রা কয়েকজন সমবেত হয়ে মসজিদের কাছাকাছি অবস্থান নেন। ছাদে থাকা চোরেরা টের পেয়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হলেও মসজিদের ভেতরে থাকা চোর কিছুই টের পায় না। যখন মসজিদের সামনে লোকজন লাইট নিয়ে অবস্থান নেন ঠিক তখনই ভেতরের চোর বুঝতে পেরে বের হয়ে আসে। কিন্তু বারান্দায় ছাদের কাজ চলমান থাকায় বাঁশের খুটির কারণে বের হতে সমস্যা হয় এবং তারাহুরো করতে গিয়ে আঘাত প্রাপ্ত হয়। পরে খুব ধস্তাধস্তি করে তাকে বারেক মিয়াকে ধরতে সক্ষম হন স্থানীয় জনসাধারণ।

মসজিদের ভিতরে গিয়ে স্থানীয়রা গিয়ে দেখতে পান, মসজিদের ভেতরে ব্যাটারির সাথে সংযুক্ত তার বিচ্ছিন্ন করে ফেলা হয়েছে। চোরের দল বড় জোড় ১৫/২০ মিনিট বাড়তি সময় পেলেই চুরি করে পালিয়ে যেতে পারতো।

এদিকে এলাকায় ছড়িয়ে পরে চোর ধরার খবর। মসজিদের মাইকে প্রচার করা হয় সবাইকে এগিয়ে যাওয়ার জন্য। সে সময় মসজিদের আশেপাশে ভিড় করেন উৎসুক জনতা। আটক চোরকে গণ পিটুনিও দেয়া হয়।

স্থানীয়রা আটককৃত চোরকে প্রশ্ন করলে সে অবান্তর উত্তর করে। নিজের নামটাও বলতে চায়নি। সাথে কেকে ছিল তাও সে বলতে চায়নি। পরে ৯৯৯ এ কল করে পুলিশকে জানানো হয়। আটককৃত চোরের ব্যাবহৃত মোবাইল দিয়ে তার পরিবারের লোকজনদের জানানো হয়। তার স্ত্রী ও শাশুড়ি ঘটনাস্থলে ছুটে আসেন। এসে তারা বলে সে নাকি নির্দোষ, এবং মানুষের পাল্লায় পরে এমনটা করেছে সে।
শাশুড়ি জানায় , তার নাম বারেক এবং তাদের বাসা মধুপুর মদনগোপাল এলাকায়। পরে পুলিশ এসে বারেক মিয়া, তার স্ত্রী ও শ্বশুড়ীকেসহ থানায় নিয়ে যায় হয়।

উল্লেখ্য: একটি ওয়াজ মাহফিলে যাওয়ার কারনে অন্যান্য দিনের মত গতরাতে মসজিদের ইমাম সাহেব মসজিদের পাশে থাকার ঘরটিতে ছিলেন না। আর এই সুযোগটি চোরেরা ব্যবহার করতে চেয়েছিল।

সংবাদটি শেয়ার করতে এখানে ক্লিক করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© এই পোর্টালের কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্ব অনুমতি ছাড়া ব্যবহার করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Design BY NewsTheme
error: Content is protected !!